বা়ংলার প্রথম পূর্ণাঙ্গ ডিজিটাল সাহিত্য পত্রিকা

.

.

.

আরও যা রয়েছে

গল্প

অন্ধ হলে কি প্রলয় বন্ধ থাকে

আমাদের এখন নানাবিধ দিবস। সেসব যাতে উদ্‌যাপিত হয় সেজন্য নানাপ্রকার ব্যবস্থাও রয়েছে। গোটা দুনিয়া জুড়েই রয়েছে। সেভাবেই আমরা পরিবেশ দিবসটিকেও পালন করি। তবে তাকে লালন করি না। দিবসান্তে তা যেন আর এক দিবসে বিলীন হয়ে যায়।  আমাদের এই গ্রহটির বয়স মোটামুটিভাবে সাড়ে চারশো কোটি বছরেরও বেশি। আর মানুষের উৎপত্তি ধরা যায় দু’লক্ষ বছর আগে।…
আরও পড়ুন

বিপন্ন পরিবেশ : বাংলা ছোটগল্প

ইকোক্রিটিকরা মনে করেন প্রকৃতির একটা বাস্তব অস্তিত্ব রয়েছে। এটি কবি-সাহিত্যিকদের কল্পনার জগতের কোনও বিষয়বস্তু কিংবা বাক্‌নির্ভর কোনও রোমান্টিক ধারণা নয়।
আরও পড়ুন

মিলন হবে কত দিনে

“পড়বে কে? সব মরে গেছে। অমর পাল, নির্মলেন্দু চৌধুরী, শচীন কর্তা, হেমন্ত মুখোপাধ্যায়...। যারা গান শুনত তারাও মরে গেছে। রেডিও উঠে গেছে। পল্লিগীতি, রম্যগীতি, অনুরোধের আসর, আকাশবাণী খাঁ-খাঁ। পড়ার আর শোনার কেউ নেই রে।”
আরও পড়ুন

বাঙালির হাতপাখা

পাখার প্রতিটি তালপাতার পালকে মুক্তোর অক্ষরে লেখা চিঠি। সব মিলিয়ে মস্ত একটা প্রেমপত্র। যেন জয়দেবের গীতগোবিন্দ। সোমা খুব যত্ন সহকারে রেখে দিয়েছিল সেই তালপাতার চিঠি। হাতপাখার এমন মলয় সমীরণ ক’জনের জীবনে আসে!
আরও পড়ুন

সেকেলে গপ্পো

পোড়ামাটির তুলসীমঞ্চের এই ধারণা নিভু নিভু করে এখনও টিকে আছে দুই মেদিনীপুর-সহ বীরভূম জেলায়। এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট মৃৎশিল্পী তথা কারিগরের ব্যক্তিগত সৃজনশীলতার প্রকাশ ছিল এইসব তুলসীমঞ্চ। পাশাপাশি গ্রামীণ শিল্পকলা, লোকভাবনা, প্রত্নতত্ব ও নৃতাত্ত্বিক দৃষ্টিকোণ থেকেও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এই তুলসীমঞ্চ।
আরও পড়ুন

পুরোটা পড়ুন

তার শাশুড়ি নকশিকাঁথা বুনত। ফোঁড় তুলে তুলে আঁকত মাছ, পাখি। সেই সুতো কোথা থেকে আসত জানো? তাঁতের শাড়ির পাড় থেকে তোলা হত সেই সুতো। চম্পাকলি তার শাশুড়ি-মা বিমলার কাঁধের কাছে মুখ নিয়ে বসে বসে তা শিখত। একদিন কী করি, কী করি ভাবতে ভাবতে চম্পা একটা শাড়ি টেনে নিয়ে বসল ফোঁড় তুলতে। ওমা! এ যে নেশার মতো।
আরও পড়ুন

চেয়ার

আচ্ছা, আমিই কেন? তামাম দুনিয়ায় এত লোক থাকতে বেছে বেছে আমাকেই কেন করা হল ওর সেই ভয়ংকর, ব্যাখ্যা-বিহ্বল, অত্যন্ত কষ্টকর কাজটির সহায়ক? কেন?
আরও পড়ুন

অনন্তবালা বৈষ্ণবীর গান

গান গেয়ে ভিক্ষা করতে করতেই শহর কলকাতায় ইসমাইল নামের এক গানপাগল তরুণ তাঁকে নিয়ে যায় শালিমার কোম্পানি আয়োজিত এক গানের আসরে, পারিশ্রমিক দশ টাকা। ওই আসরে ছিলেন গুরুধারার গায়ক মঙ্গল ফকির। অনন্তবালার গান শুনে মুগ্ধ ফকির তাঁকে শিষ্যা করে নিলেন।
আরও পড়ুন

‘অপরাজিত’ নিয়ে কিছু কথা

গত দু’দশকে বাংলায় একধরনের ছবি তৈরি হয়ে চলেছে যাকে ‘ফিল গুড’ বলা যেতে পারে। কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়, কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায়, অনীক দত্তরা এর মধ্যেও ব্যতিক্রমী বিষয় দেওয়ার চেষ্টা করেছেন আপ্রাণ।
আরও পড়ুন

এসো মিলেমিশে থাকি

গাছ কেটে বাড়ি বানাই আমরা। রাস্তা বড় করতে গাছ কাটছি। আবাসন তৈরি করতে জলাভূমি বুজিয়ে ফেলা হয়। ভাবাই হয় না যে এই গাছ, জলাভূমিতে কত প্রাণের সমাহার আছে।
আরও পড়ুন

জাকারান্ডা ও আর এক মহেশ্বর

ধর্মযুদ্ধে জয়ী হলেও পাণ্ডবদের পাপের ভার তো আর কৃষ্ণ নেবেন না। ভ্রাতৃহত্যা, গুরুহত্যা, ব্রাহ্মণহত্যার পাপ ঘাড়ে নিয়ে স্বর্গের পথ বন্ধ। কৃষ্ণের কথায় স্বর্গের ছাড়পত্র জোগাড় করতে তাঁরা চললেন শিবের কাছে। সবার ওপর শিব সত্য।
আরও পড়ুন

আমাদের কথা

সংবাদের পাশাপাশি সাহিত্য। এই আয়োজন ছিল শুরু থেকেই। এবার বাংলা ভাষার মননশীল পাঠকদের জন্য “দ্য ওয়াল ” ওয়েব পোর্টাল নিয়ে এল সাহিত্যের সম্পূর্ণ অনলাইন পত্রিকা “সুখপাঠ “। শিল্প -সাহিত্য -সংস্কৃতির অন্য ভাবনা, অনন্য পাঠ।

নিউজলেটার

আরও যা রয়েছে