বা়ংলার প্রথম পূর্ণাঙ্গ ডিজিটাল সাহিত্য পত্রিকা

সৌমনা দাশগুপ্তের দুটি কবিতা

গান আমার

রংচটা হাঁসটিকে কেটেকুটে বিকেলের পর্দা বানাই

ওইপাশে পড়ে আছে পথ, নম্র জলায় কত গাংতিতি
শূন্যে শূন্য ঢেলে একা একা গেলাস সাজাই

চিঠিগুলি বসে ছিল, আগুনে বিছানো ছিল প্রীতি

সুর তোলে নাদান বালক, চলো আমরাও গাই
ওহে ওহে রাখোয়াল, টুকরো টুকরো কত স্মৃতি
চলো আমরাও গান বাঁধি, গাভীটিকে দিগন্তে চরাই

সুফিসুর অলমতি
ছুরিতে-কুড়ুলে শান দিই
ঝকঝকে ফলা থেকে ঠিকরে উঠছে গতি

প্রমাদ ফুটেছে গাছে গাছে, ফুটেছে তিলেক রতি

 

সাকারমেশিন, রৌদ্রকামান

ভূত ও ভবিষ্যতের মাঝে এক স্ট্যাচু

ছানাকাটা রাত

কুয়াশাতাঁবুর থেকে চুপি দেয় চাঁদ
লাফিয়ে উঠছে মাছ

সাকারমেশিন, রৌদ্রকামান
খ্যা-খ্যা হেসে হাওয়ায় ভাসিয়ে দিল দাঁত

সারেং বসেছে ছাদে

তোমার মাথার দিব্যি বাড়ন্ত লবণ আর
লংকা বিহনে আমি
এলোঝেলো
তোমার মাথার দিব্যি

রুখু চুল, স্টিফ-পিক, খড়িওঠা মাঠ

যেমন পাগল খোঁজে পথে পথে ঘুরে ঘুরে
কী খোঁজে কাকেই বা

গালি দেয় থুতু ছোড়ে
নিজের ছায়ার সঙ্গে মাতে তরজায়

আমিও তো ঠিক তাই
ঘুমকেবিনের ভিতে কামনা বসাই

সপাটে মারছি চড় নিজের গালেই

অঙ্কন : শুভ্রনীল ঘোষ

(স্বপ্ননীল রুদ্রর কবিতা আগামী মঙ্গলবার)

মতামত জানান

Your email address will not be published.