বা়ংলার প্রথম পূর্ণাঙ্গ ডিজিটাল সাহিত্য পত্রিকা

জনতার আফিম : সাম্প্রদায়িক রাজনীতির বিরুদ্ধে

তাঁর মূল প্রতিপাদ্য অর্থনৈতিক শোষণের বিরুদ্ধে খেটে খাওয়া জনতার শ্রেণিগত লড়াই। কিন্তু একাধিক নাটকের উপ-বিষয় হিসেবে এসব প্রসঙ্গ দেখা দেয়। সে বিচারে অবশ্য ‘জনতার আফিম’ (১৯৯১) একেবারে আলাদা।

জীবনীকার প্যারীচাঁদ মিত্র

ছোট-বড় মিলিয়ে প্যারীচাঁদের লেখা চারটি জীবনী খুব গুরুত্বপূর্ণ। শেষ অবধি সেগুলি অবশ্য নিছক জীবনী থাকে না, তৎকালীন সময়ের দলিল হয়ে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে প্যারীচাঁদের মনোজগতেরও হদিশ দেয়।

মোটেরাম : রাষ্ট্রের উদ্দেশে কৈফিয়ত

ধর্ম ও রাজনীতির আঁতাতের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যে দেশের অখণ্ডতা আর সম্প্রীতির পক্ষে খুব গুরুত্বপূর্ণ তা বিলক্ষণ বুঝতেন সফদর। সেইজন্যে পথনাটকের ছোট পরিসর ছাড়াও প্রসেনিয়ামে আরও বিস্তারে তিনি এ বিষয়টি তুলে ধরতে চাইলেন।

বের্টল্ট ব্রেশ্‌টের আন্তিগোনে : সমকালের আলোয় ক্লাসিক

অতীতের অভিজ্ঞতা ভবিষ্যতে দিশা দেখায়, তাই হিটলারের পতনের পরও সে বিষয় নাড়াচাড়ার দরকার পড়ে। আন্তিগোনেকে দিয়ে নাটকে প্রথম দিকে ব্রেশ্‌ট বলিয়েছেন, অতীতকে ভুলে গেলে অতীত ফিরে আসে।

বাদল সরকারের বল্লভপুরের রূপকথা : কমেডির খতিয়ান

শুভেন্দু সরকার সিভিল ইঞ্জিনিয়ারের কাজে যোগ দিয়ে মাইথনে থাকাকালীন একটি ‘রিহার্সাল ক্লাব’ গঠন করেন বাদল সরকার (১৯২৫-২০১১)। কিন্তু অভিনয়ের জন্যে নাটক বাছতে গিয়ে অল্পদিনের মধ্যেই তাঁর মনে হতাশা জাগল। আর তা থেকে শুরু হল নিজে নাটক লেখার চেষ্টা।…