বা়ংলার প্রথম পূর্ণাঙ্গ ডিজিটাল সাহিত্য পত্রিকা
Browsing Tag

ধারাবাহিক

প্রতিপ্রস্তাব

এলগিন রোডে তাঁর বাড়ির উল্টো দিকে থাকা দেশনায়ক সুভাষ তাঁকে ডাকনাম ‘বুড়ি’ দিয়েই চিনতেন। বীরেন্দ্রনাথ খানিকটা বাবার অমতেই হয়তো তখনকার স্বদেশিয়ানার ঝোঁকে সিনেমা ব্যবসায় মনঃসংযোগ করলেন।

প্রতিপ্রস্তাব

জনতার মুখরিত সখ্য তপন সিংহের চলচ্চিত্রকে জড়িয়ে ধরেনি। যদিও তাঁর ছবি জনসাধারণ দিনের পর দিন দেখে গেছে। তাঁর স্বভাবেই একটি আভিজাত্য আছে যা খণ্ডিত বাংলার মধ্যবিত্ত মানসের পক্ষে অপরিচিত।

প্রতিপ্রস্তাব

ভাবতে অবাক লাগে, যখন আমাদের ইতিহাস অশান্ত ও অনিশ্চিত তখন তপন সিংহ ভাবতে পারছেন অভ্যন্তরীণ ভাঙনের কথা। ‘জতুগৃহ’ (১৯৬৪) ছবিতে। এখানে সময় ছায়া ফেলছে না সরাসরি।

প্রতিপ্রস্তাব

সবান্ধব সত্যজিৎ মনে করতেন, শব্দের অতিপ্রয়োগ দৃশ্যসৌন্দর্যের ক্ষতি করে। গানের প্রয়োগও যথাসম্ভব কম থাকা উচিত। অন্যদিকে ঋত্বিক ঘটক একেবারে বিপরীত মত পোষণ করতেন। তাঁর কাছে শব্দই ব্রহ্ম।

প্রতিপ্রস্তাব

নিমাই ঘোষ পুরস্কার পাননি কিন্তু যা পেয়েছিলেন তা পুরস্কারের অধিক। পুদভকিন-এর মতো ধ্রুপদী পরিচালক সেদিন, স্তালিনের জীবদ্দশায়, রুশ সংবাদপত্র ‘প্রাভদা’-য় ‘ছিন্নমূল’-এর উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেন।

প্রতিপ্রস্তাব

‘দি বেঙ্গলি’ নামক পত্রিকায় ১৯০১ সালে দোসরা ফেব্রুয়ারির বিজ্ঞাপন থেকে জানা যাচ্ছে যে, হীরালাল ‘ভ্রমর’, ‘আলিবাবা’, ‘দোললীলা’ এ জাতীয় ছোট ছোট ছবি দেখাচ্ছেন অমরেন্দ্রনাথ দত্তের ক্লাসিক থিয়েটারে বিরতির সময়।

প্রতিপ্রস্তাব পর্ব ২৮

‘কাল পরিণয়’-এর নায়ক ছিলেন বাঙালি ধীরাজ ভট্টাচার্য। যেহেতু নির্বাক ছবি, নায়িকা ঘোর ফিরিঙ্গি সীতাদেবী অর্থাৎ মিস রেনি স্মিথ। আর ওই দম্পতির জ্বরাক্রান্ত শিশুপুত্রের ভূমিকা নিয়েছিল জনৈকা উর্দুভাষী মুসলমান অভিনেত্রীর ছেলে।

প্রতিপ্রস্তাব পর্ব ২৭

‘মেঘে ঢাকা তারা’ (১৯৬০) আর ‘মহানগর’ (১৯৬৩) তাঁকে অমরত্বের দরজায় পৌঁছে দিল। আমাদের জীবনে যে ঝড়ের রাতে এত অভিমানী, এত স্নেহশীল অগ্রজ থাকতে পারে, অনিল চট্টোপাধ্যায়ের ‘শংকর’ না থাকলে আমরা জানতে পারতাম?

প্রতিপ্রস্তাব পর্ব ২৬

ফ্রয়েডের কাছ থেকে ধার নিয়ে বলা যায়, তাঁর শরীর ও খসখসে কণ্ঠস্বর অনেক সময়ই কাস্ট্রেশন কমপ্লেক্সকে উসকে দেয়। সম্ভবত সুপ্রিয়া চৌধুরী আমার চোখে দেখা এমন একজন বিরল অভিনেত্রী যাঁর শরীরের প্রতিটি ভাঁজে মুদ্রিত ছিল শ্রম ও নিষ্ঠা।

ধ্বন্যালোক, মহীশূর

সি ডি নরসিংহাইয়া (১৯২১-২০০৫) এই ভারতচর্চাকেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। নিজে ছিলেন ইংরেজির লোক, কেম্ব্রিজে এফ আর লীভিসের ছাত্র। মহীশূর বিশ্ববিদ্যালয়ের মহারাজা কলেজে পড়িয়েওছিলেন দীর্ঘদিন। অনেক ছাত্র মানুষ করেছেন।